Thursday,  Sep 20, 2018   2 PM
Untitled Document Untitled Document
সংবাদ শিরোনাম: •লক্ষ্মীপুরে মাদক ব্যবসায়ীর মুক্তির দাবিতে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন, বিপাকে শিক্ষক •রামগঞ্জে মাদ্রাসায় শিক্ষার্থীদের বলাৎকার; অভিভাবকগণ আতঙ্কে •রামগঞ্জে ক্ষুদে মেসি: ৪ ম্যাচে ৯ গোল! •পশুর সাথে শত্রুতা- অল্পের জন্য রক্ষা! •একজন যোগ্য শিক্ষকের হাত ধরে তৈরি হয় একজন সু-নাগরিক...... ড. আনোয়ার হোসেন খাঁন •রামগঞ্জে রমজান উপলক্ষে র‌্যালী ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত •লক্ষ্মীপুরে রেড ক্রস ও রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির প্রশিক্ষণ কর্মশালা অনুষ্ঠিত
Untitled Document

রামগঞ্জে সোনালী ব্যাংক: ব্যবস্থাপকের অনিয়মে চরম ভোগান্তি পেনশনভোগীদের

তারিখ: ২০১৭-১১-০৭ ১২:৪৯:০৯  |  ৩৩২ বার পঠিত

0 people like this
Print Friendly and PDF
« আগের সংবাদ পরের সংবাদ»

রামগঞ্জ, ৭ নভেম্বর: সোনালী ব্যাংক রামগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক সোয়েব চৌধুরীর মনগড়া নিয়ম আর অব্যবস্থাপনার কারনে পেনশনভোগীরা পড়েছেন চরম ভোগান্তিতে। ঘন্টার পর ঘন্টা সরকারী ভাতা পাওয়ার জন্য বসে থাকার পরও অনিয়ম আর অব্যবস্থাপনা ও প্রয়োজনীয় লোকবলের অভাবে নির্ধারিত সময়ের মধ্যে পাচ্ছেন না পেনশনভোগীদের ন্যায্য অধিকার।
সরেজমিনে গত বৃহস্পতিবার ও আজ সোমবার সকাল ১১টায় সোনালী ব্যাংক রামগঞ্জ শাখায় গিয়ে দেখা যায় এমন চিত্র।
পেনশনভোগী ছাড়াও গ্রাহকদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরনের অভিযোগও রয়েছে ব্যাংকের ব্যবস্থাপক সোয়েব চৌধুরীর বিরুদ্ধে।
পেনশনভোগী আবদুর রব মাষ্টার, সাবেক সরকারী এক উর্ধ্বতন কর্মকর্তা, মোঃ ওয়াজী উল্যাহ, জয়নাল আবেদীন, আবদুল মতিন, মোহাম্মদ উল্যা, আবুল বাশার, আবুল কাশেম মাষ্টার, নুরুল ইসলাম ও গোলাম রব্বানী জানান, সরকারী নিয়ম অনুযায়ী বিগত সময় পর্যন্ত সোনালী ব্যাংক রামগঞ্জ শাখা থেকে মাসের প্রথম সপ্তাহে পেনশন পাওয়া যেত। কিন্তু বর্তমান ব্যাবস্থাপক এ ব্যাংকে যোগ দেয়ার পর থেকে নতুন নতুন নিয়ম করায় পেনশনভোগী ছাড়াও ব্যাংকের গ্রাহকরা পড়েন চরম বিপাকে।
সরকারী কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করে চলতি মাসের ১ তারিখে কোন প্রকার পূর্ব নোটিশ ছাড়াই ব্যাংকের দেয়ালে ২২০০ থেকে ২৪০০ (আংশিক) কোর্ডধারী ৭ থেকে ১০তারিখ, অন্যান্য কোর্ড ১১ থেকে ১৫তারিখ ও ২২০০ থেকে ২৪০০ কোর্ড (আংশিক) ১৫ থেকে ২০ তারিখে নেয়ার জন্য নোটিশ টাঙ্গিয়ে দেয়। এতে প্রায় ১০-১২ কিলোমিটার দুর থেকে আসা পেনশনভোগীরাসহ প্রায় ২হাজার গ্রাহক পড়েন চরম দূর্ভোগে। ঘন্টার পর ঘন্টা বসে থাকার পরও ব্যাংক ব্যাবস্থাপকের কাছ থেকে তারা কোন সদুত্তোর পায়নি। উপরুন্ত শাখা ব্যাবস্থাপক তাদের সাথে অসৌজন্যমূলক আচরন করেছেন বলেও তারা অভিযোগ করেন।
ভুক্তভোগী পেনশনভোগীরা আরো জানান, আমরা বিভিন্ন দোকান থেকে মাসের বাজার করে মাসের প্রথম সপ্তাহে তাদের দেনা পরিশোধ করি। নতুন এ নিয়মের কারনে আমরা পড়েছি বিপাকে। মাসের প্রথম দিকে টাকা দেয়ার কথা থাকলেও মাসের শেষে ব্যাংক থেকে পেনশন প্রদানের কারনে হেনস্থার শিকার ও দুর থেকে যাতায়াতের কারনে আর্থিকভাবেও ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছি।
রামগঞ্জ সরকারী কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ মোঃ শহিদ উল্যাহ ও চাটখিল সরকারী কলেজের সাবেক উপাধ্যক্ষ এ কে এম নুরুল ইসলাম (কালাম প্রফেসর) এ ব্যপারে ব্যাংকের ব্যাবস্থাপক মোঃ সোয়েব চৌধুরীকে জিজ্ঞাসা করলেও তিনি কোন উত্তর দেননি।
আজ সোমবার সকাল ১১টায় সোনালী ব্যাংক রামগঞ্জ শাখার ব্যবস্থাপক মোঃ সোয়েব চৌধুরীর কাছে বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি জানান, আমার উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের নির্দেশেই এমনটা করা হয়েছে। লক্ষ্মীপুর সদর ও রায়পুর শাখায়ও এমন আইন রয়েছে।
কোন প্রজ্ঞাপনের মাধ্যমে না দিয়ে ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে তা মৌখিকভাবে এ নিয়মের অনুমতি দেয়া হয়েছে বলে তিনি দাবী করেন।  তিনি আরো জানান, কয়েক হাজার গ্রাহকদের লেনদেন তার উপর প্রায় দুই হাজার পেনশনভোগীদের টাকা প্রদানে কর্তৃপক্ষ হিমশিম খেতে হচ্ছে। প্রয়োজনীয় লোকবলের অভাবে এমনটা হয়েছে বলেও তিনি জানান।


এ পাতার অন্যান্য সংবাদ

•রামগঞ্জে ভাদুর উচ্চ বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির নির্বাচন •শিক্ষাখাতে জেলার শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন রামগঞ্জ উপজেলার •ঢাকাস্থ রামগঞ্জ উপজেলা সমিতির সভাপতি আনোয়ার খাঁন সাধারন সম্পাদক দেলোয়ার সাংগঠনিক পিন্টু •রামগঞ্জ করপাড়া কলেজের জন্য এলডিপি নেতার জমি দান •স্বাধীনতার ৪৭ বছর: স্বামীর পথ চেয়ে বৃদ্ধ স্ত্রী লতিফা এখনো কাঁদছেন •লক্ষ্মীপুরে হানাদার মুক্ত দিবসে র‌্যালি ও আলোচনাসভা •চিরনিদ্রায় সমাহিত জিয়াউল হক জিয়া
Untitled Document
  • সর্বশেষ সংবাদ
  • সবচেয়ে পঠিত
  • এক্সক্লুসিভ

  • Top
    Untitled Document